বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণা :
ডিসেম্বর বিজয়ের-গৌরবের
সংবাদ শিরোনাম :

স্বতন্ত্র প্রার্থী দুলালের বিরুদ্ধে নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির কাছে অভিযোগের পাহাড়

  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২৩, ১০.১২ পিএম
স্বতন্ত্র প্রার্থী দুলালের বিরুদ্ধে নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির কাছে অভিযোগের পাহাড়

ঝিনাইদহ (শৈলকুপা) প্রতিনিধি : নির্বাচন আচরণ বিধির কোনটাই পালন করছেন না ঝিনাইদহ-১ আসনের ট্রাক প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম দুলাল। তিনি ও তার সমর্থকরা প্রশাসনের নাকের ডগায় আচরণবিধি লঙ্ঘন করে নির্বাচনী পরিবেশ বিঘœ ঘটাচ্ছেন।

মারপিট, হামলা মামলা করেই ক্ষ্যান্ত হচ্ছেন না, রাতের আঁধারে কাড়ি কাড়ি টাকা ছিটিয়ে নজরুল ইসলাম দুলাল নির্বাচনী আইন পদদলিত করে যাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও বিজ্ঞ যুগ্ম-জেলা জজ মোঃ গোলাম নবীর কাছে তথ্য প্রমান উপস্থাপন করে অভিযোগ করেছেন নৌকার প্রার্থী ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী আব্দুল হাই এমপি। তিনটি পৃথক লিখিত অভিযোগপত্রে তিনি উল্লেখ করেন, “তৎকালীন বিডিআর (বর্তমান বিজিবি) এর বহিস্কৃত সিপাহী স্বতন্ত্র প্রার্থী ট্রাক প্রতীকের নজরুল ইসলাম দুলাল বিশ্বাস বিধি বর্হিভূতভাবে পুর্বানুমতি ছাড়া নির্বাচনী সভা করেছেন।

গত ২৫ ডিসেম্বর বিকেল ৩ টার দিকে তিনি শৈলকুপা উপজেলা শহরের মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে, ৫ টার দিকে লাঙ্গলবাধ বাজার, সন্ধ্যায় ৭ টায় ধাওড়া বাজার, ৯ টার দিকে কচুয়া বাজার ও সাড়ে ৯ টার পর জাঙ্গালীয়ায় নির্বাচনী সভা করেন। অথচ তিনি ওই দিন শৈলকুপা উপজেলা প্রশাসনের কাছ থেকে মাত্র দুইটি সভা করার অনুমতি নিয়েছিলেন, যা নির্বাচনী আচরণবিধির

সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।
লিখিত অভিযোগে দাবী করা হয়, গত ২৬ ডিসেম্বর শৈলকুপা উপজেলার মীনগ্রাম মোল্লা পাড়ায় নৌকা প্রতিকের নেতাকর্মীরা মিছিল বের করে। সে সময় দুলাল বিশ্বাসের ক্যাডার বাহিনী নৌকার সমর্থকদের উপর সশস্ত্র হামলা চালায়। এতে নৌকার ৪ কর্মী-সমর্থক আহত হন।

দুলাল বাহিনীর এমন বর্বরোচিত হামলায় নৌকার ভোটারদের মাঝে ভয়-ভীতি ছড়িয়ে পড়েছে। এছাড়া শৈলকুপার মীনগ্রামের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদের ছেলে আবাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রিয় সদস্য হাবিবুর রহমান রিপন মেম্বারকে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। এই হত্যার নির্দেশদাতাও ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম দুলাল ও তার ভাই ইউপি চেয়ারম্যান হেলাল বিশ্বাস।

আব্দুল হাই এমপি নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও বিজ্ঞ যুগ্ম-জেলা জজের কাছে লিখিত পৃথক অভিযোগে উল্লেখ করেন, নজরুল ইসলাম দুলাল বিশ্বাসের পিতা রশিদ বিশ্বাস ডাকাত ছিল, ডাকাতি মামলায় ৭ বছর কারাদন্ড ভোগ করেছিলেন। বংশানুক্রমে উক্ত প্রার্থী ও পরিবারের সদস্যরা এলাকায় দাঙ্গাবাজ হিসেবে চিহ্নিত।

আব্দুল হাই অভিযোগ করেন, গত ২৬ ডিসেম্বর দুলাল বিশ্বাসের সমর্থকরা শৈলকুপা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ট্রাক নিয়ে মিছিল বের করে শান্ত পরিবেশ উত্তপ্ত করে তোলে। এক পর্যায়ে নৌকার ভাটই বাজারে দেখতে পাই কয়েকটি ট্রাক যোগে শত শত নেতাকর্মী মিছিল করছে।

যা নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন। আব্দুল হাই এমপি উল্লেখিত তিনটি অভিযোগ তদন্ত পুর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন। এ সব অভিযোগের বিষয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে নজরুল ইসলাম দুলালের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

 

কাউখালীতে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৩

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

https://natunshokal.com/#
নিবন্ধনের জন্য আবেদনকৃত অনলাইন নিউজ পোর্টাল। অনুমতি ছাড়া এই পোর্টালের কোন সংবাদ কপি করে অন্য কোথাও প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকুন।