মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণা
বিশেষ ঘোষণা : নতুন সকাল ডটকম এর সকল জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধিদের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে, যারা এখনো পরিচয়পত্র নবায়ন করেননি বা আদৌ পরিচয়পত্র গ্রহণ করেননি। তাদেরকে দ্রুত যোগাযোগ করতে বলা হলো। -সম্পাদক।
সংবাদ শিরোনাম
জাতীয় সংসদের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য হলেন আব্দুস সালাম মূর্শেদী এম.পি রূপসায় ফল ও সবজি প্রক্রিয়াজাতকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত ডুমুরিয়ায় ১ লাখ ৬০হাজার টাকার কীটনাশক বিনষ্ট    ফকিরহাটে ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন কেশবপুরের সাবদিয়ায় ১৬ দলীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্টে চাঁদের আলো চ্যাম্পিয়ান কেশবপুরে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ বেনাপোলে ইয়াবা ট্যাবলেটসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক রূপসায় ১৬ দলীয় ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে বেসরকারি সংস্থাসমূহকে দায়িত্বশীলতার সাথে কাজ করতে হবে-সিটি মেয়র রূপসায় অধ্যাপক চাইনিজের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ

চাটমোহরে অপরিকল্পিত ও অপ্রয়োজনীয় সেতু নির্মাণ

  • আপডেট : বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১, ১১.৪৭ পিএম
চাটমোহরে অপরিকল্পিত ও অপ্রয়োজনীয় সেতু নির্মাণ

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি : যোগাযোগের রাস্তা নেই,অথচ নির্মাণ করা হয়েছে সেতু। যেখানে প্রয়োজন নেই,সেখানেও সেতু তৈরি করা হয়েছে। সেতু নির্মাণ করা হলেও নেই কোন রকম সংযোগ সড়ক। সেতুর সাথে বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার হতে হয় এলাকাবাসীকে।

এমন নানা অসঙ্গতি,অপরিকল্পিত আর অপ্রয়োজনীয় সেতুর দেখা মেলে পাবনার চাটমোহর উপজেলার বিভিন্ন প্রান্তে। যে সেতুগুলো উপকারের পরিবর্তে দূর্ভোগ বাড়িয়েছে এলাকাবাসীর। ভুক্তভোগীদের প্রশ্ন সেতু নির্মাণের নামে সরকারের লাখ লাখ টাকা কেন অপচয় করা হয়েছে ? দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সেতু/কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় সেতুগুলো নির্মাণ করা হয়েছে।

চাটমোহর উপজেলার মূলগ্রামের সিংগার জোলা। জোলার উপর রেলওয়ে ব্রিজ। এই জোলার ওপরে নয়,জোলার পাশে কুদ্দুস সরকারের জমির পাশে একটি সেতু তৈরি করা হয়েছে। কোন গ্রামের বা কোন ফসলের মাঠের সাথে এর কোন সংযোগ নেই। প্রয়োজন না থাকলেও ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে সেতুটি নিমার্ণ করা হয়েছে ২১ লাখ ৩৫ হাজার টাবা ব্যয়ে। নদীর পাড়ে খালের উপর সেতুটি নির্মাণের কোন যৌক্তিকতা খুঁজে পায়নি এলাকাবাসী।

একই অবস্থা উপজেলার বিলচলন ইউনিয়নের সোনাহারপাড়া গ্রামের পাশের সেতুটির। খলিশাগাড়ি বিলের পাড়ে নির্মাণ করা হয়েছে একটি সেতু। সেতুর উত্তর পাশে যাতায়াতের কোন রাস্তা নেই। ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে ৩২ লাখ ৫২ হাজার টাকা ব্যয়ে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে। যা এখন পরিত্যক্ত। এলাকাবাসী জানান,গ্রামে ও বিলে যাতায়াতের জন্য দরকার রাস্তার। কিন্তু রাস্তা না বানিয়ে বানানো হয়েছে সেতু। যা এলাকাবাসীর কোন কাজে আসছে না।

অপরদিকে উপজেলার নিমাইচড়া গ্রামে সেতু নির্মাণ হলেও সংযোগ সড়কে মাটি ফেলা হয়নি। ফলে কষ্ট বেড়েছে মানুষের। উঁচু বা খাড়া সেতুতে উঠতে নামতেই কম্ব শেষ শিশু ও বয়স্কদের।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিচে আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ThemesBazar-Jowfhowo
# নতুন সকাল ডটকম, রূপসা-খুলনা থেকে প্রকাশিত একটি অনলাইন পত্রিকা। # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।