শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
কেশবপুরে করোনায় আক্রান্ত বৃদ্ধার মৃত্যু কেসিসি মেয়রের রোগ মুক্তি কামনায় মোংলা প্রেসক্লাবে দোয়া অনুষ্ঠিত স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় রূপসায় ২৪ জনের করোনা পরীক্ষায় পজেটিভ ২ তেরখাদায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৫ জুয়াড়িকে ৭ দিনের কারাদন্ড তেরখাদার কাটেংগা বাজারে পার্শ্বে ময়লার ভাগাড় : হুমকির মুখে পরিবেশ রূপসায় সাবেক চেয়ারম্যান খান বজলুর রহমানের মৃত্যু বার্ষিকী পালিত রূপসায় ৫০০ গ্রাম গাঁজাসহ মাদক বিক্রেতা আটক ইসলামী আন্দোলন খুলনা লবণচরা থানার সেক্রেটারীর স্ত্রীর ইন্তেকালে শোক ঝিনাইদহে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের স্বপ্নের ঠিকানা পাচ্ছেন ৭০৫ পরিবার বিএনপি নেতা এ্যাড: কামরুল মনিরের মৃত্যুতে বিএনপি’র শোক

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার শংঙ্কা, আতংঙ্কে এলাকাবাসী

  • আপডেট : মঙ্গলবার, ৮ জুন, ২০২১, ৫.২৭ পিএম
করোনা ভাইরাস সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার শংঙ্কা, আতংঙ্কে এলাকাবাসী

বিশেষ প্রতিনিধি, মোংলা : মোংলায় বেড়েই চলেছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের হার। সেই সাথে বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। কঠোর লকডাউনের আজ ১০তম দিন, গত ২৪ ঘন্টায় ২৬ জনের পরিক্ষায় ১৪জন করোনায় আক্রান্ত, মৃত্যু হয়েছে আরো একজন।

হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যাবস্থা তেমন না থাকায় পরিক্ষার পর অনেক করোনা রোগী হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে নিজ বাসায়ই নিচ্ছে ব্যাক্তিগত চিকিৎসা। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন, এই মুহুর্তে এখানে বেশ কয়েকটি আইসিইউ বেড ও সেন্টালসহ পর্যাপ্ত অক্সিজেন প্রয়োজন। তবে যা আছে তা দিয়েই চলছে কার্যক্রম।

বন্দর সংলগ্ন মোংলা উপজেলায় করোনার মহামারীকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন অক্সিজেন, আইসিইউ বেড ও অন্য জেলা থেকে আসা লোকজনকে শহরে ডোকা থেকে বিরত রাখা। কিন্ত পুলিশ প্রশাসন মানুষদের শহরে প্রবেশ ঠেকাতে পারছে না। লোকজন বিভিন্ন অজুহাতে ঢুকে পরছে পৌর শহরে।

এছাড়াও মোংলা হাসপাতালে ল্যাব টেকনিশিয়ানসহ অন্যান্য গুরুত্বপুর্ন পদে লোকবল না থাকায় বিপদে পরতে হচ্ছে এলাকা থেকে আসা রুগীরা। নেই এক্স-রে করানো কোন ব্যাবস্থা। করোনা বা অন্য কোন রোগে আক্রান্ত রুগীদেরকে দ্রুত খুলনা বা ঢাকায় নিতে হলে নেই এ্যাম্বুলেন্স’র কোন ব্যাবস্থা। সরকারের দেয়া দুইটি এ্যাম্ভোলেন্স তাও নষ্ট হয়ে পরে আছে হাসপাতালের মাঠে।

এছাড়া টেকনিশিয়ান না থাকায় নমুনা সংগ্রহে ননটেকনিশিয়ানদের দিয়ে কাজ করানো হচ্ছে। এছাড়াও অন্যান্য পদে টেকনিশিয়ান না থাকায় করোনা রোগীদের গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা-নিরীক্ষা না করতে পারায় তাদেরকেও পাঠানো হয় বিভাগীয় শহর খুলনাতে।

তাই মোংলাবাসীর দাবী, দ্রুত করোনা রুগীদের জন্য স্বাস্থ্য সম্মত আইসিইউ বেড, সেন্টাল অক্সিজেন ও এ্যাম্বুলেন্স ব্যাবস্থা চালু রাখাসহ প্রশাসনকে আরো কঠোর হওয়ারও দাবী জানায় তারা।

জুন মাসের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ২৩২ জনের নমুনা পরিক্ষায় ১৩৮জন করোনায় আক্রান্ত। মৃত্যু হয়েছে ৭জনের। ১২ জনকে খুলনায় মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, মোংলা নিজেস্ব হাসপাতালে পর্যাপ্ত চিকিৎসা ব্যাবস্থা না থাকায় মোংলার উপজেলা, ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভার গুরুত্বপূর্ন ব্যাক্তিরা করোনা রুগীরা চিকিৎসা নিচ্ছে নিজেস্ব বাস ভবনে। এ জন্য শংঙ্কা ও ভয়ে দিন কাটছে স্থানীয়দের।

মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মলয় মল্লিক জানায়, এই মুহুর্তে আমাদের বেশী প্রয়োজন সেন্টাল অক্সিজেন এবং রুগীদের জন্য আইসিইউ বেড। উপজেলা এর কোন ব্যাবস্থা না থাকায় এখানকার করোনা সংক্রমন যারা পডজেটিভ হচ্ছে তাদের বাড়ীতেই বা অন্য

হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। তার পরেও যারা বেশী আক্রান্ত হচ্ছে তাদের দ্রুত খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার ব্যাবস্থা করা হচ্ছে বলে জানায় ডাঃ মলয় মল্লিক।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিচে আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ThemesBazar-Jowfhowo
# নতুন সকাল ডটকম, রূপসা-খুলনা থেকে প্রকাশিত একটি অনলাইন পত্রিকা। # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।