রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
কেশবপুরে ২২’শ শ্রমিকের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ রামপালে তরুণী নিখোঁজ থানায় সাধারণ ডায়েরি পাইকগাছায় বর্ধিত আকারে বিএনপির অক্সিজেন ব্যাংকের উদ্বোধন কৃষিপন্য রপ্তানিতে রাষ্ট্রীয় পদক পাচ্ছেন তেরখাদার মাহমুদ পাইকগাছার ৫ শতাধিক গণপরিবহন শ্রমিক পেল প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক আলী আশরাফ’র মৃত্যুতে সালাম মূর্শেদী এমপির শোক কাউখালীতে যৌতুক লোভী স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধু ঘরছাড়া কাউখালীতে রাস্তা আটকিয়ে গোয়লঘর নির্মাণ : জনদূর্ভোগ চরমে শার্শায় এক সন্তানের জননীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ চাকরী বাচাঁতে রমনা ঘাটে ঢাকা যাত্রীর জনস্রোত

পাইকগাছায় আশংকাজনক হারে বেড়েছে করোনা : দু’দিনে ১৯ জন পজেটিভ

  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১, ৮.৩০ পিএম
covid-19

পাইকগাছা প্রতিনিধি : পাইকগাছায় আশংকাজনক হারে বেড়েছে করোনা সনাক্তের হার। স্থানীয় প্রশাসন সংক্রমন রোধে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করলেও কমছে না সনাক্তের হার। গত দু’দিনে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। যার মধ্যে ১৯ জনের পজেটিভ সনাক্ত হয়।

পাশাপাশি ১ জন মৃত ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষা করা হলে পজেটিভ সনাক্ত হয় বলে করোনা ইউনিট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। সূত্র অনুযায়ী জুন মাস থেকেই এলাকায় করোনা সনাক্তের হার আশংকাজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলা করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী জেলা প্রশাসন ১০ জুন থেকে ২১ জুন পাইকগাছা পৌরসভায় কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে।

বিধিনিষেধ কার্যকর করতে স্থানীয় প্রশাসন কার্যকরী পদক্ষেপ নিলেও থামছে না করোনা সনাক্তের হার। প্রতিদিন বেড়েই চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা মুখপাত্র ডাঃ ইফতেখার বিন রাজ্জাক জানান, গত বুধবার ১৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। যার মধ্যে ৯ জনের পজেটিভ সনাক্ত হয়। একই দিন সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটী গ্রামের ইয়াছিন হায়দার (৬৫) নামে এক ব্যক্তিকে মৃত অবস্থায় তার স্বজনরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। আমরা তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করি।

পরীক্ষায় তার রিপোর্ট পজেটিভ সনাক্ত হয়। এছাড়া বৃহস্পতিবার ৪০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। যার মধ্যে ১০ জনের পজেটিভ সনাক্ত হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার জানান, বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা ইউনিটে ৫ জন করোনা রোগী ভর্তি রয়েছে। এদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশংকাজনক। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী জানান, সংক্রমন বেড়ে যাওয়ায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১১ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

বিধিনিষেধ কার্যকর করতে প্রতিদিন আমরা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার পাশাপাশি নানা পদক্ষেপ নিচ্ছি। বিধিনিষেধ কার্যকর করতে যাদের মাস্ক নাই তাদেরকে আমরা করোনা টেস্ট করাতে বাধ্য করছি। এখানেও অনেকের মধ্যে পজেটিভ সনাক্ত হচ্ছে। অর্থাৎ করোনা সংক্রমন এতটাই বেড়েছে যে পরীক্ষা করলেই পজেটিভ সনাক্ত হচ্ছে।

বর্তমানে আমরা কঠিন ঝুঁকির মধ্যে অবস্থান করছি। এ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হলে আমাদের স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করার কোন বিকল্প নেই। সবাইকে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে, প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়া যাবে না।

আমরা যে যেখানেই অবস্থান করি না কেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বাইরে যাওয়ার আগেই সকলকে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করার আহ্বান জানান ইউএনও খালিদ হোসেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিচে আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ThemesBazar-Jowfhowo
# নতুন সকাল ডটকম, রূপসা-খুলনা থেকে প্রকাশিত একটি অনলাইন পত্রিকা। # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।