সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
রূপসায় সংরক্ষিত আসনের ইউপি সদস্য চয়ানিকাকে আবারো চায় এলাকাবাসী “অসহায় মানুষদের আইনী সহায়তা নির্শ্চিত করতে হবে” রূপসায় শ্রীফলতলা ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী ইসহাক সরদারের গণসংযোগ ডুমুরিয়ায় জিকেবিএসপি’র কাজ পরিদর্শন নৈহাটী ইউপি’র ২নং ওয়ার্ডে এবারও ইলিয়াজকে মেম্বর হিসেবে দেখতে চাই ওয়ার্ডবাসী আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুরের নির্বাচনী জনসভা ১৯৭৫ এর পরে দেশের সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা-এমপি সালাম মুর্শেদী শার্শায় নৌকার মনোনয়ন জেরে হামলা : ইউপি সদস্যসহ আহত ২০ খুলনায় রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ফকিরহাটে ট্রাকের ধাক্কায় ইজিবাইক চালকসহস আহত ৫

‘স্কুলে জাতীয় পতাকা টাঙানোর নিয়ম নেই’ বলে দাবি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার

  • আপডেট : মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭.৪০ পিএম
‘স্কুলে জাতীয় পতাকা টাঙানোর নিয়ম নেই’ বলে দাবি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আরিফ সরকার নিজের চাকুরী জীবনে বিভিন্ন সময় বহু বিব্রত ঘটনার জন্ম দিয়েছেন। আরিফ সরকার বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অনিয়ম থেকে শুরু করে করেছেন নানা প্রকার দুর্নীতি অপকর্ম। নিজে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে ভোটের ব্যালটে সীল মেরে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছেন অনেক সময়। আবার নিয়মিত অফিসে অফিস না করা সরকারি ক্ষমতার অপব্যাবহার সহ নানা রকম অভিযোগ উঠেছে এই শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। আরিফ সরকারের এরকম হরেক রকম দুর্নীতি অনিয়মের কথা বিগত সময়ে অনেক জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিক পত্রিকার শিরোনামের কেন্দ্র হয়েছেন জন্ম দিয়েছেন নানা বির্তকের আর সমালোচনার একাধিক বিষয়ের। এবার সে জন্ম দিলো আরেকটা দেশ বিরোধী ঘটনার। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা টাঙানো যাবেনা বলে এমন অস্বাভাবিক এক বিরূপ মন্তব্য করে বসলেন।
করোনা মহামারি কালীন সময়ে সরকার শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বিবেচনা করে দীর্ঘদিন ধরে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ রেখেছিল। কিন্তু করোনা প্রকোপ কমে আসায় ১২/৯/২০২১/ তারিখ থেকে সরকার স্বাস্থ্য বিধি মেনে দেশের সমস্ত স্কুল,কলেজ গুলো সীমিত পরিসরে পাঠদানের লক্ষ্যে খুলে দেয়। তারপর থেকে সারা দেশের ন্যায় ঝিনাইদহে সকল বিদ্যালয় গুলোতে নিয়মিত পাঠদান করাচ্ছেন সকল শিক্ষক বৃন্দ। প্রতিদিনের ন্যায় বিদ্যালয়ে স্ব-শরীরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ছুটে চলছেন ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের শ্রেণীকক্ষে ক্লাস করার জন্য। তবে ঝিনাইদহ বেশকিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মানা হচ্ছে না করোনা স্বাস্থ্যবিধি ও টাঙানো হচ্ছে না দেশের জাতীয় পতাকা।
এলাকা বাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঝিনাইদহের কয়েকজন সাংবাদিক ঝিনাইদহ শহরের মহিলা কলেজ পাড়ায় অবস্থিত ” ঝিনাইদহ মহিলা দাখিল মাদ্রাসায়” স্বরজমিনে গিয়ে দেখতে পায় মাদ্রাসা ভবনে কোন জাতীয় পতাকা টাঙানো নেই। সেই সাথে মানা হচ্ছে না করোনা স্বাস্থ্যবিধি অধিকাংশ শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মুখে নেয় কোন মাস্ক শারিরীক দূরত্ব বজায় রাখছেন অনেকেই। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা না টাঙানোর বিষয়ে ঝিনাইদহ সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার আরিফ সরকারের কাছে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে সে বলেন। করোনা কালীন সময়ে শিক্ষা অধিদপ্তরের নতুন পরিপত্রে স্কুলে জাতীয় পতাকা টাঙানো নিষেধ আছে। সেই সাথে জাতীয় সংগীত ও এসেম্বলি করানো যাবেনা বলে সে জানান। জাতীয় পতাকা টাঙানো যাবেনা এমন পরিপত্র তার অফিসে আছে বলে সে জানান। পরিপত্রটি দেখতে চাইলে তিনি বলেন আমি রবিবারে সারাদিন ছুটিতে থাকবো কাল আমি দেখাতে পারবোনা পরে আসেন বলে সে জানান।
বিদ্যালয়ে নতুন করে জাতীয় পতাকা টাঙানো যাবেনা এমন বিষয়ে ঝিনাইদহ জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের সহকারী পরিদর্শক মোজাফফর হোসেন কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন জাতীয় পতাকার জন্যই আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছি। আমার জানমতে করোনার সময়েও যখন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ ছিলে ঠিক তখনো অফিস চলাকালীন সময় জাতীয় পতাকা টাঙানোর নিয়ম ছিল। জাতীয় পতাকা বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে বাধ্যতামূলক টাঙানোর নিয়ম এখনো আছে। সেই সাথে পতাকার সঠিক মাপ রং ঠিক রাখাটা জরুরি বলে মনে করেন তিনি।
স্কুলে জাতীয় পতাকা টাঙানো যাবেনা এমন কোন নিয়ম বা পরিপত্র ঝিনাইদহ ভারপ্রাপ্ত জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার তসলিমা খাতুনের কাছে আছে কিনা তা জানতে ও দেখতে চাইলে তিনি বলেন এরকম কোন কাগজ আমাদের কাছে নেই। তিনি বলেন আমরা সবাই বাঙালি ও বাংলাদেশ নাগরিক মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বহু রক্তের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি স্বাধীনতা ও লাল সবুজের প্রিয় পতাকা। সমস্ত সরকারি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়ম মেনে জাতীয় পতাকা টাঙানোর বাধ্যতামূলক নির্দেশনা রয়েছে। পতাকা টাঙানো যাবেনা এমন অবাস্তব কথা যদি কোন অফিসার বলে থাকে তাহলে সেটা তার সম্পুর্ণ ব্যাক্তিগত মত। এই বিষয়ে আমাদের শিক্ষা অফিসের যদি কেউ বলে থাকে তবে প্রমাণ পেলে আমরা তার বিরুদ্ধে আইন গত ব্যাবস্থা নেবো বলে জানান এই অফিসার। কারণ স্কুলে জাতীয় পতাকা টাঙানো যাবেনা এমন কোন কথা আমরা বলতে পারিনা এটা সংবিধান পরিপন্থী।
এদিকে আরিফ সরকারের এরকম দেশবিরোধী মনগড়া বানোয়াট মিথ্যা অপপ্রচারের কথা শুনে জেলা শিক্ষা অফিসের অনেক কর্মকর্তারা অবাক হন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা টাঙানো যাবেনা বলে এমন মন্তব্য করায় ঝিনাইদহের অনেক সচেতন মহল মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী মানুষ বিষয়টি নিয়ে গভীর ক্ষোভ ও দুঃখ প্রকাশ করেন। বিগত সময়ে তার বিরুদ্ধে বহু অভিযোগের সত্যতা তুলে ধরায় অনেক গণমাধ্যম কর্মীকে নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে তার পোশা ক্যাডার বাহিনীর হাতে। তার বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের পরিচালনা ম্যানেজিং কমিটিতে অবৈধ হস্তক্ষেপ করার অনিয়মের অভিযোগে আদালতে একটি মামলাও চলমান রয়েছে। তবে এ-তো সব অপরাধ করেও তিনি পার পেয়ে জান। তার বিরুদ্ধে কোন সঠিক ব্যাবস্থা নেওয়া হয়না বলে তার অফিসের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেক কর্মচারী দাবি করেন। অনেক অভিযোগের ঘটনার তদন্ত মোটা অংকের অর্থের লেনদেন করে থামিয়ে দেন কোন এক ঐশ্বরিক ক্ষমতা বলে। বারবার শত অন্যায় অপরাধ করে অধরাই থেকে জান ঝিনাইদহের সদর উপজেলার এই মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আরিফ সরকার।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিচে আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ThemesBazar-Jowfhowo
# নতুন সকাল ডটকম, রূপসা-খুলনা থেকে প্রকাশিত একটি অনলাইন পত্রিকা। # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।