সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১০:২৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
রূপসায় সংরক্ষিত আসনের ইউপি সদস্য চয়ানিকাকে আবারো চায় এলাকাবাসী “অসহায় মানুষদের আইনী সহায়তা নির্শ্চিত করতে হবে” রূপসায় শ্রীফলতলা ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী ইসহাক সরদারের গণসংযোগ ডুমুরিয়ায় জিকেবিএসপি’র কাজ পরিদর্শন নৈহাটী ইউপি’র ২নং ওয়ার্ডে এবারও ইলিয়াজকে মেম্বর হিসেবে দেখতে চাই ওয়ার্ডবাসী আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুরের নির্বাচনী জনসভা ১৯৭৫ এর পরে দেশের সফল রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা-এমপি সালাম মুর্শেদী শার্শায় নৌকার মনোনয়ন জেরে হামলা : ইউপি সদস্যসহ আহত ২০ খুলনায় রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ফকিরহাটে ট্রাকের ধাক্কায় ইজিবাইক চালকসহস আহত ৫

হিরোর মত থেকে বীরের মত গেলেন যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আবুবকর মোল্লা

  • আপডেট : বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪.১৬ পিএম
হিরোর মত থেকে বীরের মত গেলেন যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আবুবকর মোল্লা

নিজস্ব প্রতিবেদক : সততা, দক্ষতা ও কর্মতৎপরতায় একই উপজেলায় ১৬ বছর চাকরি করে অন্যত্র বদলী হলেন রূপসা উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা ও অফিসার্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবুবকর মোল্লা। বিগত বছরগুলিতে নানাবিধ কর্মকান্ডের গুনে সাধারণ মানুষের প্রিয় পাত্রে পরিণত হয়েছিলেন এই কর্মকর্তা। এ কারণে বদলিজনিত বিদায়কে ঘিরে বিভিন্ন সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবি সংঠনের পক্ষ থেকে তাকে দেয়া হয় বিদায় সংবর্ধনা। একারণে সাধারণ মানুষদের বলতে শোনা গেছে- ছিলেন অনেকটা হিরোর মত, আর গেলেন বীরের মত।
২০০৪ সালে রূপসা উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন মোঃ আবুবকর মোল্লা। বিগত ১৬ বছরে তার দাপ্তরিক কর্মকান্ডের পাশাপাশি উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন অতিরিক্ত দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করেছেন তিনি। বিশেষ করে রূপসা ঘাটে খাস-খাজনা চালুর ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের সাথে তিনি বিরামহীনভাবে কাজ করেন। এছাড়া দুর্যোগকালীন বিভিন্ন সময় দিন রাত এক করে ছুটতেন দুর্ভোগে পড়া মানুষের কাছে।
বেকার যুবকদের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টিতে প্রশিক্ষণ দিয়ে মানব সম্পদে পরিণত করার মূল কাজ যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের হলেও এসব দায়িত্বের পাশাপাশি অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনে কুন্ঠাবোধ করতেন না সদা হাস্যজ্বল যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আবুবকর মোল্লা।
কাজের বিনিময় খাদ্য কর্মসূচি, ভিজিডি’র চাল বিতরণ কার্যক্রমে যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার ট্যাগ অফিসারের দায়িত্ব পালনে সততার বহু নজির রয়েছে। তিনি দায়িত্বে থাকতে মেম্বর চেয়ারম্যানরা কোন প্রকার দুর্ণীতি করার সুযোগ পেতেন না।
রূপসা উপজেলায় দীর্ঘ ১৬ বছর থাকাকালে তিনি মাছুয়াডাঙ্গা গ্রামকে বেকারমুক্ত গ্রাম করার উজ্জল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। ওই গ্রামের ১০৭ জনের ৭০ জনকে পরিবার ভিত্তিক ঋণ, ১০ জনকে যুব ঋণ দেয়ার পাশপাশি বাকীদের বিভিন্ন মাছকোম্পানী ও গার্মেন্টসে চাকরীর ব্যবস্থা করে দেন। এই সাফল্যজনক কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ ২০১৮ সালে ইনোভেশন আইডিয়ার আওতায় বিভাগীয় শ্রেষ্ঠ ইনোভেটর এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় কতৃক সম্মাননা স্বারক গ্রহন করেন।
এ পর্যন্ত তিনি উপজেলার সাড়ে চার হাজার বেকার যুবক-যুবতীকে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। এদের মধ্যে উপজেলার ৫ ইউনিয়নে ৩০০ বেকার যুবক-যুবতিকে সাবলম্বি করতে সক্ষম হয়েছেন।
এসব নানা কারণে যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আবুবকর মোল্লার বিদায়কে ঘিরে বিদায় সংবর্ধনার ঝড় বয়ে যায়। ০৪ সেপ্টেম্বর পূর্ব রূপসায় ঘাট মাঝি সংঘ, ০৫ সেপ্টেম্বর শ্রীফলতলা ইউনিয়ন পরিষদ, ০৬ সেপ্টেম্বর ১৭টি যুব সংগঠন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, রূপসা প্রেসক্লাব, উপজেলা প্রেসক্লাব, প্রেসক্লাব রূপসা, উপজেলা প্রশাসন ও অফিসার্স ক্লাব, শিল্পকলা একাডেমী, মাছুয়াডাঙ্গা বেকারমুক্ত গ্রাম সমবায় সমিতি তাকে বিদায় সংবর্ধনা প্রদান করেন। এছাড়া কাজদিয়া সরকারি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষাকবৃন্দসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা প্রদান করা হয়।
বিদায়ী যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ আবুবকর মোল্লা বলেন-রূপসা উপজেলায় কর্মরত থাকা অবস্থায় যতটা সম্ভব সততা ও স্বচ্ছতার সাথে সকল প্রকার কর্মকান্ড করেছি। কিন্তু সেই কাজ করার মধ্য দিয়ে মানুষের এতটা ভালবাসা অর্জন করেছি সেটা এই রকম একটা মুহুর্ত না আসলে জানতে পারতাম না।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিচে আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ThemesBazar-Jowfhowo
# নতুন সকাল ডটকম, রূপসা-খুলনা থেকে প্রকাশিত একটি অনলাইন পত্রিকা। # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।