শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৩৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
কেশবপুর বুড়িহাটী জামে মসজিদে প্রথম বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত কেশবপুর জন্মনিবন্ধন বাধ্যতমূলক করতে পৌর কাউন্সিলরের ব্যাতিক্রম উদ্যোগ কেশবপুরে ইউপি নির্বাচন উপলক্ষে জাপার মতবিনিময় সভা চুলকাটিতে কৃষককের গোয়াল ঘর হতে তিনটি গরু চুরি রূপসায় আর.আর.এন সেচ্ছাসেবী সংগঠনের ৫ম বার্ষিকী উদযাপন রামপালে ৫০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাড়ে ৪ হাজার শিশু সুপেয় পানি থেকে বঞ্চিত রাইজিং সান হেল্থ ক্লাবের দ্বি-বার্ষিক সাধারন সভা অনুষ্ঠিত রূপসায় স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভা অনুষ্ঠিত এককেজি গাঁজা ও ১৩০ গ্রাম ইয়াবাসহ ৪ মাদক ব্যবসায়ী ও গাঁজাসেবী আটক চিলমারীতে নির্বাহী অফিসারের মদদে কাজ করছে না তথ্য কর্মকর্তারা

ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

  • আপডেট : শনিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ৬.৫৮ পিএম
ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৩অক্টোবর) সকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সংসদ সদস্য আব্দুল হাই’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুর স ালনায় সভায় প্রধান
অতিথির বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ,ফ,ম বাহাউদ্দীন নাছিম এবং প্রধান বক্তা ছিলেন, খুলনা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক।
বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাড.আমিরুল আলম মিলন এমপি ও পারভীন জামান কল্পনা।

বিশেষ বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন, ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাবেক এমপি শফিকুল ইসলাম অপু, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি অ্যাড. আজিজুর রহমান,তৈয়ব আলী জোর্য়াদ্দার ও আব্দুল খালেক। ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার, ঝিনাইদহ-৩ আসনের সংসদ সদস্য শফিকুল আজম খান চ ল, ঝিনাইদহ-মাগুরা সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য খালেদা খানম ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কনক কান্তি দাস ।
প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, শেখ হাসিনা যা বলবেন, তার সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত। সেটা মেনেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি করি। সকলে মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে আওয়ামী লীগ করতে আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সভায় নির্দেশ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বাহাউদ্দিন নাছিম আরো বলেন, ব্যক্তিগত স্বার্থের জন্য জাতির পিতার আদর্শ বাস্তবায়ন করা যাবে না। সত্যিকার অর্থে আওয়ামী লীগ হতে হবে। বঙ্গবন্ধুর চেতনাকে বুকে ধারণ করতে হবে। শেখ হাসিনা আমাদের প্রাণ,তিনি আমাদের চেতনা। সেটা মেনেই রাজনীতি করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে।
নাছিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচেছ। সেই অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে কাজ করছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। দলকে শক্তিশালী করা ও আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি হিসেবে দেশের বিভিন্ন জেলায় নতুন কমিটি হচেছ। তারই ধারাবাহিকতায় এই বর্ধিত সভা।
বাহাউদ্দিন নাসিম আরো বলেন, সারা বিশ্ব যখন অর্থনৈতিক দিক দিয়ে পিছিয়ে রয়েছে তখন আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে অর্থনৈতিক দিক দিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। বিগত সময়ে করোনাভাইরাসে যখন সারা বিশ্বে সম্ভিত, তখন আপনারা যারা আওয়ামী লীগ করেন তারা কেউ ঘরে বসে থাকেননি। আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ মানুষকে সহযোগিতা করেছেন। কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছেন।
খুলনা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক
বলেন, তৃণমূল থেকে দলকে শক্তিশালী করে গড়ে তোলার তাগিদ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। এই নির্দেশনা কীভাবে বাস্তবায়ন করছেন সাংগঠনিক সম্পাদকরা। আমরা চাই অভ্যন্তরীণ বিরোধ মিটিয়ে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে আমরা কাজ করছি। তৃণমূলেই আওয়ামী লীগের শক্তি, কথাটি জেলা উপজেলার নেতাদের উপলব্ধি করতে হবে মনেপ্রাণে।
বিএম মোজাম্মেল হক বলেন,আওয়ামী লীগ খরস্রোতার মতো বহতা নদী। এ দলে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা আছে, থাকবে। প্রতিযোগিতা থেকে কিছু জায়গায় প্রতিহিংসার বহিঃপ্রকাশ ঘটে। সেগুলো নিরসনই আমাদের কাজ। সমস্যা যত কঠিনই হোক, নেতাকর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করলেই তা সমাধান হয়। কোনো পক্ষ নেয়া যাবে না, যৌক্তিক কথা বলতে হবে। লোভ-লালসার ঊর্ধ্বে উঠে আবেগতাড়িত না হয়ে কাজ করতে হবে।

মোজাম্মেল হক আরো বলেন, আওয়ামী লীগে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ প্রতিটি পদের জন্য অনেক যোগ্য নেতা আছেন। কিন্তু সবাইকে কমিটিতে স্থান দেয়া যায় না। দলের নীতি ও আদর্শের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, কর্মীদের আস্থাভাজন, সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয়-এমন ব্যক্তিকে নেতা বানালে দলের জন্যও ভালো হয়। আমরা পরীক্ষিত, আদর্শিক ও ত্যাগী নেতাদের দিয়ে কমিটি করছি। এটা সর্বত্র অব্যাহত রাখতে হবে।
বর্ধিত সভায় বিএম মোজাম্মেল অনুপ্রবেশকারী ও মতলববাজদের সম্পর্কে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের সবচেয়ে বড় বিড়ম্বনা অনুপ্রবেশকারী ও মতলববাজরা। তারা আমাদের নেতাকর্মীদের অনেকের হাত ধরে বিভিন্ন পরিচয়ে, বিভিন্ন সুবিধা দিয়ে দলে অনুপ্রবেশ ঘটাচ্ছে। দলে আসে লুটপাট আর সুবিধা নিতে। এজন্য কিছু টাকাও খরচ করে। এদের নির্মূল করা আমাদের সবচেয়ে বড় কাজ। যারা সুবিধা নিয়ে এদের দলে এনেছেন, আমরা তাদেরও চিহ্নিত করেছি। হয়তো সরাসরি বলি না। আওয়ামী লীগ তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়। কমিটি করার সময় সেগুলো আমলে নিই। বঙ্গবন্ধু কন্যার নির্দেশ আছে- যাদের বিচ্যুতি ঘটেছে তাদের কমিটিতে রাখছি না। নির্বাচনে যারা বিদ্রোহী প্রার্থী ছিল, তাদের মনোনয়ন দেয়া হচেছ না। এমনকি তাদের দলের পদেও রাখা হচেছ না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাড.আমিরুল আলম মিলন এমপি ও পারভীন জামান কল্পনা বলেন, তৃণমূলের নেতাকর্মী শেখ হাসিনার বিশ্বস্ততার জায়গা। সেই তৃণমূলকে সংগঠিত করতে আমরা অঙ্গীকারাবদ্ধ। সংগঠনকে শক্তিশালীকরণের পাশাপাশি দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের খোঁজ-খবর আমাদের নিতে হবে। দলের দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাকর্মীদের অন্তর্বেদনা আমাদের বুঝতে হবে। প্রধানমš শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে, দেশ ও জাতির উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে এবং এক্যবদ্ধভাবে সবাইকে কাজ করার আহ্বান জানান।
দলীয় সূত্র ও খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,তৃণমূলে আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ বিরোধ চরম আকার ধারণ করেছে। ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামীলীগসহ সকল পর্যায়ে অভ্যন্তরীণ বিরোধ বিরাজমান। বেশ কয়েক বছর ধরে একাধিক গ্রুুেপ বিভাজিত হয়ে দলীয় রাজনীতি চলছে। ঝিনাইদহে তৃণমূলের বিরোধ মেটাতে মাঠে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা । কোথাও কোথাও স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে সংসদ সদস্যের (এমপি) বিরোধ, কোথাও জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে দ্বন্দ্ব বিরাজ করছে। নানা বিষয়ে আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব-সংঘাত ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ গ্রুুপিংয়ে একদিকে যেমন দল জনপ্রিয়তা হারাচেছ অন্যদিকে অভিমানে দুরে সরে যাচ্ছেন দলের ত্যাগী, পরিশ্রমী ও পরীক্ষিত নেতারা। দুর্বল হচ্ছে দলের সাংগঠনিক অবস্থা। এসব দ্বন্দ্ব মেটাতে হিমশিম অবস্থা কেন্দ্রীয় নেতাদের। আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে যেকোনো মূল্যে অভ্যন্তরীণ বিরোধ মেটাতে চায় আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে দলীয় সভাপতির নির্দেশে সব অভ্যন্তরীণ সমস্যা মিটিয়ে তৃণমূল পর্যন্ত দলকে ঐক্যবদ্ধ ও আরও শক্তিশালী করতে তারা মাঠে নেমেছেন।
এসময় জেলার ৬ উপজেলা, সব পৌরসভা,সকল জনপ্রতিনিধিসহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক,ঝিনাইদহ পৌরসভার ওর্য়াড আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিচে আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ThemesBazar-Jowfhowo
# নতুন সকাল ডটকম, রূপসা-খুলনা থেকে প্রকাশিত একটি অনলাইন পত্রিকা। # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।