বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:২৭ অপরাহ্ন
জরুরী ঘোষণা :
নতুন সকাল ডটকম পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন। নতুন সকাল ডটকম পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন নতুন সকাল ডটকম পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন নতুন সকাল ডটকম পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন *
সংবাদ শিরোনাম
তেরখাদায় আশ্রয়নে মধ্যরাতে কম্বল নিয়ে শীতার্তদের পাশে ইউএনও রাজশাহী জেলা পরিষদের উদ্যোগে শীর্তাত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ রাজশাহী জেলা তাবলিগ ইজতেমার কাজের উদ্বোধন করলেন রাসিক মেয়র সেবা গ্রহিতাদের মনকে প্রফুল্ল করতে তেরখাদা উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে ফুলের বাগান! ডুমুরিয়ায় বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল’র বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠিত  কেশবপুরে সচেতন সোসাইটির উপজেলা এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত ঝিনাইদহে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কৃষি ঋণ মেলা অনুষ্ঠিত কোস্টগার্ডের অভিযানে ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যাবসায়ী আটক ২০ কেজি মাংস ফেলে পালালো হরিন শিকারী কেশবপুরের কেন্দ্রীয় কালী মন্দিরের উন্নয়নে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

রূপসায় মুক্তিযোদ্ধার লীজকৃত রেলের জমি অবৈধ দখলের চেষ্টা : থানায় অভিযোগ

  • আপডেট : বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ৪.৩৫ পিএম
  • ৭২ জন পড়েছেন
রূপসায় মুক্তিযোদ্ধার লীজকৃত রেলের জমি অবৈধ দখলের চেষ্টা : থানায় অভিযোগ

রূপসা প্রতিনিধি : রূপসা উপজেলার নৈহাটী ইউনিয়নের জয়পুর এলাকায় অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হোসেনের লীজ নেয়া রেলের জমি জবর দখলে মেতে উঠেছে এলাকার চিহ্নিত ভূমি দস্যুরা। প্রতিকার চেয়ে ভুক্তভোগীর পক্ষে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।
ভুক্তভোগী সূত্রে জানা গেছে, ১৯৭৪ সালে উপজেলার জয়পুর মৌজার ১৮০ নং খতিয়ানের জেএল নং ২৭ এর ৯০, ২৭৮/আংশ, ৮৫, ৮৬, ৭৮, ৭৭, ৭৬/অংশ দাগে ১.২০ একর জমি বাংলাদেশ রেলওয়ে থেকে লিজ নেন প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ মনোয়ার হোসেন। সেই থেকে তিনি ওই জমিতে ফলদ ও বনজ গাছ রোপনসহ কৃষি এবং মৎস্য চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। পাশাপাশি রেলের খাজনা পরিশোধ করছেন নিয়মিত। ১৯৯৬ সালে তার ভোগ দখলীয় জমি শ্রেণী বিন্যাস হলে ০.৮৭ একর জমি জলাশয় ও ০.৩৩ শতক জমি কৃষি হিসেবে রেলওয়ে থেকে সংশোধনীয় লাইসেন্স প্রাপ্ত হন তিনি। যার লাইসেন্স নম্বর ০৭৪৬৬৯।
এদিকে মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হোসেনের ওই জমির উপর ললুপ দৃষ্টি পড়ে এলাকার কতিপয় ভূমি দস্যুদের। ২০১৭ সালে খুলনা রেলওয়ের জনৈক কর্মকর্তার কারশাজিতে টেন্ডারের মাধ্যমে ভূমি দস্যুরা ওই জমি পাঁচ বছর মেয়াদী লিজ দেখায় মোহাম্মদ আনোয়ারুল ইসলাম বাবুর নামে।
তিনি আবার সাব লীজ দেন নিকলাপুর গ্রামের মৃত মজিদ হাওলাদারের ছেলে মোঃ মতিয়ার রহমান, মোঃ আব্দুল হামিদ শেখের ছেলে মোঃ হানিফ, মোঃ উতার উদ্দিনের ছেলে আব্দুস সালাম, মোঃ আব্দুর রশিদের ছেলে মোঃ মিজানুর রহমান, মোঃ হোসেন শেখের ছেলে মোহাম্মদ ইদ্রিস শেখ ও মোঃ আব্দুল আজিজ শেখ এর ছেলে মোঃ হায়দার সেখকে। অথচ উক্ত জয়পুর মৌজার কোন জায়গা ঐ টেন্ডারের তালিকায় ছিল না। তারপরও তারা ভুয়া লাইসেন্সের বুনিয়াদে রেলের ভূমি আইন লঙ্ঘন করে বালি দিয়ে জলাশায়ের আংশিক ভরাট করে তা প্লট আকারে মোটা অংকের টাকায় বিক্রি এবং অবৈধ স্থাপনা গড়ে তোলে। এমনকি জলসায়ের পাড় হতে বড় বড় গাছ কেটে নিয়ে যায় এবং ভুক্তভোগী মনোয়ারকে শায়েস্তা করার জন্য উল্টো ওই গাছ কাটার দায়ে তার নামে মামলা করেন। এদিকে তাদের ওই ভুয়া টেন্ডারের ভূয়া লাইসেন্সের পাঁচ বছরের মেয়াদ অতিবাহিত হলেও সরকারি জমি বিক্রির মাধ্যমে অর্থ বানিজ্য শেষ হয়নি। এদিকে গত ১৪ নভেম্বর ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হোসেনের ছেলে মাঈনুল হাসান পুনরায় আবেদন করে লীজের লাইসেন্স ও খাজনা হালনাগাদ করেন। এদিকে ভূমি দস্যদের মধ্যে জয়পুর গ্রামের মদিনা সড়কের বাসিন্দা রাজু আহমেদ গত ২২ নভেম্বর সকালে ওই জমিতে বাঁশ-খুটি দিয়ে স্থাপনা নির্মাণের মাধ্যমে জবর দখলের চেষ্টা চালাতে থাকে। মৌখিকভাবে তাদের স্থাপনা নির্মাণে নিবৃত করতে না পেরে ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হোসেনের ভাইপো আনোয়ার সাদাত প্রতিকার চেয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে থানা পুলিশ শান্তি বজায় রাখারা স্বার্থে অবৈধ নির্মাণ কাজ বন্ধ করলেও রাতের অন্ধকারে কাজ চালাচ্ছে অবৈধ দখলদাররা।
উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ৩ অক্টোবর তালিমপুর গ্রামের উতারদ্দীনের ছেলে আব্দুস সালাম মনোয়ার হোসেনের ওই জমি বিক্রি ও অবৈধ স্থাপনা গড়ার চেষ্টা করতে থাকে। এসময় বাংলাদেশ রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলীয় জোনের বিভাগীয় এস্টেট অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ নুরুজ্জামান ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে আব্দুস সালামকে দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। অভিযানকালে রূপসা উপজেলা নির্বাহী অফিসার, রেলওয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং স্থানীয় থানা পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিচে আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

ThemesBazar-Jowfhowo
# নতুন সকাল ডটকম, খুলনা রূপসা থেকে প্রকাশিত একটি অনলাইন পত্রিকা। # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।