বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৩৩ অপরাহ্ন
জরুরী ঘোষণা :
নতুন সকাল ডটকম পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন। নতুন সকাল ডটকম পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন নতুন সকাল ডটকম পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন নতুন সকাল ডটকম পড়ুন ও বিজ্ঞাপন দিন *
সংবাদ শিরোনাম
তেরখাদায় আশ্রয়নে মধ্যরাতে কম্বল নিয়ে শীতার্তদের পাশে ইউএনও রাজশাহী জেলা পরিষদের উদ্যোগে শীর্তাত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ রাজশাহী জেলা তাবলিগ ইজতেমার কাজের উদ্বোধন করলেন রাসিক মেয়র সেবা গ্রহিতাদের মনকে প্রফুল্ল করতে তেরখাদা উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে ফুলের বাগান! ডুমুরিয়ায় বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল’র বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠিত  কেশবপুরে সচেতন সোসাইটির উপজেলা এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত ঝিনাইদহে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কৃষি ঋণ মেলা অনুষ্ঠিত কোস্টগার্ডের অভিযানে ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যাবসায়ী আটক ২০ কেজি মাংস ফেলে পালালো হরিন শিকারী কেশবপুরের কেন্দ্রীয় কালী মন্দিরের উন্নয়নে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

ফুটবলের রাজা খ‌্যাত পেলে আর নেই

  • আপডেট : শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০২২, ১.১২ এএম
  • ৬৮ জন পড়েছেন

ক্রীড়া ডেস্ক : বার বার মৃত‌্যুর মুখ থে‌কে ফি‌রে আসা ফুটব‌লের রাজা খ‌্যাত ব্রা‌জি‌লের এডসন আরান্তেস দো নাসিমেন্তো পে‌লে অব‌শে‌ষে পা‌ড়ি দি‌লেন না ফেরার দে‌শে।

বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) ব্রাজিলের সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তি‌নি। ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে ৮২ বছর বয়সে মারা গেলেন ব্রাজিলিয়ান এই কিংবদন্তি।

পেলের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন তাঁর কন্যা কেলি নাসিমেন্তো।

ফুটবলের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে অনেকের কাছে প্রশংসিত পেলে সাম্প্রতিক বছরগুলিতে স্বাস্থ্যগত সমস্যায় ভুগছিলেন। ২০১৮ বিশ্বকাপ চলাকালে তাঁকে হুইলচেয়ারে বসা অবস্থায় দেখা যায়। সেই টুর্নামেন্টের এক মাস পরেই পেলেকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল।

২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে একটি টিউমার অপসারণের জন্য অস্ত্রোপচারের পর থেকে তিনি ডাক্তারদের কাছ থেকে নিয়মিত চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। কিন্তু ২০২২ সালের শেষের দিকে তাঁকে আবারও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার উন্নতি হয়নি। কাতার বিশ্বকাপজুড়ে এবং এরপর ক্রিসমাসের সময়েও পেলে সাও পাওলোর হাসপাতালটিতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। পেলের মেয়ে কেলি নাসিমেন্তো পুরো সময়জুড়ে অসুস্থ বাবার স্বাস্থ্যের খবরাখবর বিশ্ববাসীকে জানিয়েছিলেন।

বর্ণিল এক জীবন কাটিয়েছেন পেলে। পেয়েছেন অনেক স্বীকৃতি। ১৯৯৯ সালে শতাব্দীর সেরা অ্যাথলেট হিসেবে স্বীকৃতি পান আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির কাছ থেকে। ফিফার ‘প্লেয়ার অব দ্য সেঞ্চুরি’ হয়েছেন ম্যারাডোনার সঙ্গে যৌথভাবে।

১৩৬৩ ম্যাচ খেলে ১২৭৯ গোল করেছেন পেলে। ক্লাব ক্যারিয়ারের পুরোটাই তিনি কাটিয়েছেন সান্তোসে। ১৫ বছর বয়সে ক্লাব ও এক বছর পর জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক হয় তাঁর। এরপর দেশের হয়ে ১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৭০ এর বিশ্বকাপ জেতেন পেলে। ১৯৭৭ সালে ফুটবলকে বিদায় বলেন এই কিংবদন্তি।

নিউজটি শেয়ার করুন

নিচে আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

ThemesBazar-Jowfhowo
# নতুন সকাল ডটকম, খুলনা রূপসা থেকে প্রকাশিত একটি অনলাইন পত্রিকা। # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া কপি রাইট বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।